1. admin@spicynews24.com : admin :
  2. nfjsduwdwdyu@gmail.com : mk tr : mk tr
সৌদিতে ধর্মপ্রচারকের ৪ বছরের কারাদ'ণ্ড -
শিরোনাম
সবাই পাচ্ছেন মাই ট্রাভল পাস, সবাই মালয়েশিয়াতে প্রবেশ করতে পারবেন! সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল পরীমণির ব্যাঙ্গচিত্র, ক্ষেপেছেন ভক্তরা প্লিজ সবাই শেয়ার করে প্রবাসীর লাশটিকে দ্রুত দেশে পাঠাতে সাহায্য করুন চেয়ারম্যানের নির্দেশ ছাড়া চুল কাটা যাবে না, ভোলায় বিজ্ঞপ্তি জারি মালয়েশিয়ায় কারা বৈধ হতে পারবে, কারা পারবেনা/লাল সিল,বৈধ হওয়া সম্পর্কে তথ্য আলহামদুলিল্লাহ্‌! ফের মালয়েশিয়ায় এসে পৌঁছালাম মালয়েশিয়ায় ফিরে যাওয়া প্রবাসীদের কোয়ারেন্টাইন খরচ বহন করবে নিয়োগকর্তা বাংলাদেশকে ১৫ টি ঘোড়া উপহার দিলো ভারত ইলিশের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে পাঙ্গাস এক সতিনকে জেতাতে দুই সতিনের প্রচারণা

সৌদিতে ধর্মপ্রচারকের ৪ বছরের কারাদ’ণ্ড

  • আপডেটঃ শুক্রবার, ১ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১১ বার পঠিত

 

ধর্মপ্রচারক ইউসুফ আল আহমাদকে চার বছরের কারাদ’ণ্ড দিয়েছেন সৌদি আরবের একটি আদালত। ২০১৭ সাল থেকে তিনি কারাগারে আটক রয়েছেন। রায়ে বলা হয়, কারাভোগ শেষে মুক্তি পেলেও পরবর্তী ৪ বছর তিনি বিদেশ ভ্রমণ করতে পারবেন না।

বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে তারা টুইটার অ্যাকাউন্টও। শুক্রবার (০১ জানুয়ারি) মিডল ইস্ট মনিটরে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, বইমেলায় যাওয়া, ফাহদ আল-সুনাইদিস সম্মেলনে অংশ গ্রহণ এবং কারাগারে আটক অন্য ধর্ম প্রচারকদের সঙ্গে সাক্ষাতের মতো ঠুনকো কারণে শেখ ইউসুফ আল আহমাদকে চার বছরের কারাদ’ণ্ড দেওয়া হয়েছে।

কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়ার পর আরও চার বছর তার বিরুদ্ধে বিদেশ ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। ২০১১ সালে এক ভিডিও বার্তায় রাজবন্দিদের আটক রাখার বিষয়টি সমাধানের জন্য কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানানোর কারণেও শেখ আহমাদকে একবার গ্রে’ফতার করা হয়।

শাসকের বিরুদ্ধে প্ররোচনা দেওয়া, জাতীয় স্বার্থ ক্ষতিগ্রস্ত করা এবং রাষ্ট্রীয় সম্মান ক্ষুন্নের অভিযোগে ওই সময় তাকে ৫ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এক বছর পর তিনি রাজকীয় ক্ষমায় কারাগার থেকে মুক্তি পান। ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে ধর্মপ্রচারক এবং বুদ্ধিজীবীদের বিরুদ্ধে চালানো সরকারি গ্রে’ফতার অভিযানে তিনি আবারও আটক হন। আইনশা’স্ত্রের ওপর পিএইচডি করেছেন শেখ আহমাদ। রিয়াদে ইমাম মুহাম্মদ বিন সৌদ ইসলামি ইউনিভার্সিটিতে অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত ছিলেন তিনি। পর্যবেক্ষকরা বলছেন, কাতারের বিরুদ্ধে রাজ আদালতের নির্দেশ মানতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন অধিকাংশ বুদ্ধিজীবী।

এছাড়া, পরবর্তী বাদশাহ হিসেবে আবির্ভুত হওয়ার জন্য অভ্যন্তরীণ বিরোধীদলীয় রাজনীতিবিদদের বিরুদ্ধে মোহাম্মদ বিন সালমানের নেয়া পদক্ষেপেও তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন তারা। এসবকে গ্রেফতার অভিযান পরিচালনার অন্যতম কারণ হিসেবে এটাকে উল্লেখ করেছেন পর্যবেক্ষকেরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরও খবর পড়ুন
© 2021 | All rights reserved by Spicy News
Customized BY Spicy News