1. admin@spicynews24.com : admin :
  2. nfjsduwdwdyu@gmail.com : mk tr : mk tr
‘শেখ হাসিনাকে সোনিয়া গান্ধী, খালেদাকে’ রাষ্ট্রপতির প্রস্তাব -

‘শেখ হাসিনাকে সোনিয়া গান্ধী, খালেদাকে’ রাষ্ট্রপতির প্রস্তাব

  • আপডেটঃ সোমবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৮ বার পঠিত

 

ওয়ান ইলেভেনের সময় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে শুধু দলের নেতৃত্বে থাকার প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। আওয়ামী লীগ যদি ক্ষমতায় যায় তাহলে তিনি প্রধানমন্ত্রী হবেন না। সোনিয়া গান্ধীর মতো দলের প্রধান থাকবেন। শেখ হাসিনা ঐ প্রস্তাব প্রত্যাখান করেছিলেন।

অন্যদিকে বেগম জিয়াকে প্রস্তাব করা হয়েছিল রাষ্ট্রপতি করার। প্রধানমন্ত্রী হবে দলের অন্য কেউ। বেগম জিয়া রাষ্ট্রপতি হতে রাজী হলেও, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তারেক জিয়ার নাম বলেছিলেন। কিন্তু খালেদার সংগে সমঝোতার চেষ্টাকারীরা চেয়েছিল, তারেক বিএনপির নেতৃত্বে না থাকুক। কিন্তু বেগম জিয়া তারেকের ব্যাপারে অনঢ় ছিলেন।

ওয়ান-ইলেভেনের শেষ দিকে প্রস্থান পথ চুড়ান্ত করতে, কুশীলবরা দুই নেত্রীর সংগেই যোগাযোগ করেন। এসময় দুই নেত্রীই কারান্তরীন ছিলেন। জাতীয় সংসদ ভবনে বিশেষ কারাগারে তাদের বন্দী করা হয়।

মূলত: আগস্টে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র বিক্ষোভের পর একের পর এক সমস্যার মুখে পরে ড. ফখরুদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে সেনা সমর্থিত তত্বাবধায়ক সরকার। একদিকে দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি, ব্যবসায়ীদের হয়রানির কারণে অর্থনৈতিক কর্মকান্ড স্থবির হয়ে পরা, অন্যদিকে সেনাবাহিনীর মধ্যে রাজনীতি থেকে দূরে আসার পক্ষে মনোভাব-সরকারকে কোনঠাসা করে।

এ অবস্থায় একটি শান্তিপূর্ণ প্রস্থান পথ তৈরীর জন্য ঐ সরকারের কুশীলবরা প্রধান দুটি রাজনৈতিক দলের সংগে দরকষাকষি শুরু করে। ১/১১ সরকার চেয়েছিল একটি দলের সংগে সমঝোতার মাধ্যমে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে। যাতে, তাদের কোন ক্ষতি না হয়। তবে, এই প্রক্রিয়াতেও তারা দুই নেত্রীকে রাজনীতির বাইরে এবং ক্ষমতার বাইরে রাখতে চেয়েছিলেন।

২০০১ এর পর শেখ হাসিনার ঘনিষ্ঠ আওয়ামী লীগের এক তরুণ নেতাকে ‘সোনিয়া গান্ধী’ ফর্মূলা দেয়া হয়েছিল। ঐ ফর্মূলা শোনার পর, শেখ হাসিনা বলেছিলেন ‘গণতন্ত্রে সবকিছু সিদ্ধান্ত নেবার এখতিয়ার জনগণের। মুচলেকা দিয়ে বঙ্গবন্ধুর মেয়ে রাজনীতি করে না।’ এরপর কুশীলবরা সরাসরি শেখ হাসিনার সংগে কথা বলেন।

কারাবন্দী শেখ হাসিনার সংগে সাক্ষাতকারী একজন সেনা কর্মকর্তা জানান ‘শেখ হাসিনা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবীতে অটল ছিলেন। তিনি জনগণের ক্ষমতা জনগনকে ফিরিয়ে দেয়ার দাবী জানান। টেবিলে বসে নির্বাচনী ফলাফল ঘোষণা হরে তা জনগন মেনে নেবে না বলেও জানিয়ে দেন।’ এখান থেকেই সেনা সমর্থিত তত্বাবধায়ক সরকার নির্বাচন মূখী যাত্রা শুরু করে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরও খবর পড়ুন
© 2021 | All rights reserved by Spicy News
Customized BY Spicy News