Breaking News
Home / প্রবাসী খবর / আরব আমিরাতে যেসব যোগ্যতা থাকলে মিলবে গোল্ডেন ভিসা- দেখে নিন

আরব আমিরাতে যেসব যোগ্যতা থাকলে মিলবে গোল্ডেন ভিসা- দেখে নিন

 

দশ বছরের রেসিডেন্টস ভিসা (গোল্ডেন ভিসা) প্রদানের সংখ্যা বাড়িয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। এই ভিসা পেতে পারে এমন পেশার তালিকাও বাড়ানো হয়েছে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং প্রধানমন্ত্রী ও দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাখতুম রবিবার ঘোষণা দিয়েছেন যে, দশ পেশার লোক দশ বছরের গোল্ডেন ভিসার যোগ্য হবেন। খবর খালিজ টাইমসের।

গোল্ডেন ভিসায় স্ত্রী-সন্তানকে নিয়েই বসবাস করা যাবে। তবে গোল্ডেন ভিসা পাওয়া সব ক্যাটাগরির লোকদেরই বিশেষায়িত কোনো ক্ষেত্রে বৈধ কর্মসংস্থানের চুক্তি থাকতে হবে।

যেসব পেশার লোকেরা আমিরাতের গোল্ডেন ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন, সেগুলো হলো-

১. পিএইচডি ডিগ্রিধারী: পিএইচডি ডিগ্রিধারীদের গোল্ডেন ভিসা দেবে আমিরাত। তবে শর্ত হলো বিশ্বের সেরা ৫০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের যেকোনো একটি থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করতে হবে।

২. চিকিৎসক: চিকিৎসকদেরও দশ বছরের জন্য রেসিডেন্টস ভিসা দেবে আমিরাত। এটি দেশটিকে মহামারি মোকাবেলা করতে এবং চিকিৎসা পেশাদারদের ঘাটতি পূরণ করতে সহায়তা করবে। ভাইরাল মহামারিবিদ্যায় বিশেষজ্ঞদের গোল্ডেন ভিসা দিয়ে পুরস্কৃত করা হবে বলে জানান শেখ মোহাম্মদ।

৩. প্রকৌশলী: প্রতিভাবান ব্যক্তিদের আকৃষ্ট করার জন্য কম্পিউটার, ইলেকট্রনিক্স, প্রোগ্রামিং, বৈদ্যুতিক, সক্রিয় প্রযুক্তি, এআই এবং বিগ ডাটা ক্ষেত্রের প্রকৌশলীরা আমিরাতের গোল্ডেন ভিসা পাবেন।

৪. উচ্চতর যোগ্য ব্যক্তি: সংযুক্ত আরব আমিরাত উচ্চ যোগ্যতাসম্পন্ন ব্যক্তিদের দশ বছরের গোল্ডেন ভিসা দেবে। এমন আবেদনের জন্য অনুমোদিত বিশ্ববিদ্যালয়গুলো থেকে ৩.৮ বা তার বেশি বেশি পয়েন্ট পেতে হবে।

৫. গবেষক বা বিজ্ঞানী: আমিরাতের গোল্ডেন ভিসা দেয়া হবে গবেষক ও বিজ্ঞানীদের, যারা নিজ নিজ ক্ষেত্রের বিশেষজ্ঞ।

বিজ্ঞানীদের অবশ্যই আমিরাত বিজ্ঞানী কাউন্সিল বা বৈজ্ঞানিক এক্সিলেন্সের জন্য মোহাম্মদ বিন রশিদ পদকধারীদের দ্বারা অনুমোদিত হতে হবে।

৬. উদ্ভাবক: উদ্ভাবকদেরও গোল্ডেন ভিসা দেবে আমিরাত। তবে তাদের আবিষ্কারের পেটেন্টের মান থাকতে হবে যা আমিরাতের অর্থনীতিতে প্রভাব রাখতে পারে। পেটেন্টগুলো অবশ্যই আমিরাত অর্থ মন্ত্রণালয়ের দ্বারা অনুমোদিত হতে হবে।

৭. শিল্পী: সংস্কৃতি ও শিল্প ক্ষেত্রে সৃজনশীল ব্যক্তিদের গোল্ডেন ভিসা দেবে আমিরাত। সংস্কৃতি ও শিল্পের সৃজনশীল ব্যক্তিদের সংস্কৃতি ও জ্ঞান উন্নয়ন মন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমোদিত হতে হবে।

৮. বিনিয়োগকারী: যারা আমিরাতে ১০ মিলিয়ন দিরহাম (২৩ কোটি টাকা প্রায়) বিনিয়োগ করেছেন তারাও গোল্ডেন ভিসার আবেদন করতে পারবেন। তবে এটি ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডে ডিপোজিট, কোনো সংস্থা প্রতিষ্ঠা বা রিয়েল এস্টেট বা অন্য কোনো কৌশলগত খাতে বিনিয়োগের আকারে হতে হবে। এই প্রকল্পের আওতায় বেশ কয়েকটি ভারতীয়, পাকিস্তানি ও আরব বিনিয়োগকারীদের গোল্ডেন ভিসা দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া ৫ বছরের জন্য যেসব পেশার লোকদের ভিসা দেবে আমিরাত-

১. উদ্যোক্তা: এই ভিসা এমন উদ্যোক্তাদের দেয়া হয় যাদের বিদ্যমান প্রকল্প রয়েছে এবং ন্যূনতম ৫ লাখ দিরহাম মূলধন রয়েছে। এছাড়া যাদের আমিরাতে ব্যবসা করার অনুমোদন রয়েছে। উদ্যোক্তাদের শুরুতে ছয় মাসের মাল্টি-এন্ট্রি ভিসা দেয়া হয় এবং পরে তা আরও ছয়মাসের জন্য নবায়নযোগ্য। দীর্ঘমেয়াদী ভিসায় স্ত্রী, সন্তান, একজন অংশীদার এবং তিনজন নির্বাহী অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

২. মেধাবী শিক্ষার্থী: আমিরাতের বা বিদেশের সরকারি বা বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ৫ বছরের ভিসা দেবে আমিরাত। এজন্য তাদেরকে একাডেমিক পরীক্ষায় ৯৫ শতাংশ নম্বর পেতে হবে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে অন্তত ৩.৭৫ পেতে হবে। পরিবারসহ শিক্ষার্থীদের ভিসা দেয়া হবে।

About mk tr

Check Also

মায়ের চিকি’ৎসার জন্য পাঠানো টাকা আ’ত্মসাৎ, মালয়েশিয়া প্রবাসীর আর্তনাদ

  ব্রেন টি’উমারে আক্রা’ন্ত মা ফিরোজা বেগম এখনও আশায় বু’ক বেঁ’ধে আছেন মালয়েশিয়া প্রবাসী সন্তানের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *