Home / ধর্ম ও জীবন / যে পাঁচটি কথা বাবা-মাকে কখনোই বলা উচিত নয়

যে পাঁচটি কথা বাবা-মাকে কখনোই বলা উচিত নয়

প্রত্যেক বাবা-মা’র সবচেয়ে বড় সম্পদ হচ্ছে তার নিজ সন্তান।

 

তাইতো নিজে’র সর্বস্ব দিয়েই সন্তানকে বড় করে তোলেন বাবা-মা। যদিও সন্তানকে মানুষ করার ধ’রনটা সবার এক রকম হয় না। সন্তাকে ভালোভাবে মানুষ ক’রতে যেয়ে ভালোবাসার পাশাপাশি ব’কাবকিও ক’রতে হয় মা-বাবাকে। তবে যখন সন্তান বড় হয়ে যায় তখন একটু একটু করে বাবা-মা’র স’ঙ্গে ত’র্ক করাও শুরু করে।

 

তাই এই সময়টাতে এমন কিছু কথা সন্তানরা বলেন, যা বাবা-মাকে কখনোই বলা উচিত নয়। এসব কথা বাবা- মাকে কেবল কষ্টই দেয়। চলুন তবে জে’নে নেয়া যাক সেই কথাগুলো স’স্পর্কে- ‘আমি তোমাকে ঘৃ’ণা করি’- এই কথাটা যেকোনো অভিভাবকের কাছে সবচেয়ে বড় কষ্টের। সন্তান যত বড়ই হয়ে যাক না কেন, এই কথাটি বলা একদমই ঠিক নয়।

 

‘তোম’রা আমাকে জ’ন্ম দিলে কেন’- অনেক সন্তানকেই এই কথাটি বলতে শোনা যায়। যা সত্যি খুব খা’রাপ। যেকোনো অভিভাবকই এই কথা শুনতে মোটেও প্র’স্তুত থাকেন না। বিশেষ করে বিবাহবি’চ্ছেদের প’রিস্থিতিতে সবচেয়ে বেশি শুনতে হয় এই অ’ভিযোগ। কিন্তু এই কথাটা সবচেয়ে বেশি আঘা’ত করে তাদের।

 

‘তুমি বোন বা ভাইকে বেশি ভালোবাসো’- অভিভাবকের কাছে তার সব সন্তানই সমান। হয়তো স্নেহের বহিঃপ্র’কাশটা একেকজনের ক্ষেত্রে একেক রকম হয়ে থাকে। কিন্তু এটা কখনো ভাবা উচিত নয় যে, অন্য সন্তানকে তিনি বেশি ভালবাসেন এবং সেটা ভেবে তাকে কটু কথা বলা একেবারেই উচিত নয়। >

 

‘তোম’রা যদি আমা’র বাবা-মা না হতে তবে ভালো হতো’- সম্ভবত প্রথম কথাটির চেয়েও এই কথাটি অনেক বেশি কষ্ট দেয় অভিভাবকদের। ‘তোমাকে এখন সময় দিতে পারব না’- বাবা-মায়েরা সন্তানকে বড় করে তোলার সময়ে অনেক আত্মত্যা’গ করেন। কিন্তু উল্টোটা সব সময়ে দেখা যায় না। যদি ব্যস্ততার কারণেও বয়স্ক অভিভাবককে সময় দিতে না পারা যায়, তাহলেও এভাবে কথা বলা কখনো শোভন নয়।

About mk tr

Check Also

হাজিদের উপহার সামগ্রী দিচ্ছে হজ ও ওমরা মন্ত্রণালয়- (ছবিঘর)

  ওমরা পালন করতে হাজিদের জন্য উপহার সামগ্রী ব্যাবস্থা রেখেছে হজ ও ওমরা মন্ত্রণালয়। ছবি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *