Breaking News
Home / আলোচিত / এইমাত্র সন্ধান মিললো আবু ত্বহা মুহাম্মদ আদনানের-দাবি ফেস দ্যা পিপলের

এইমাত্র সন্ধান মিললো আবু ত্বহা মুহাম্মদ আদনানের-দাবি ফেস দ্যা পিপলের

 

ইসলামি বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনানের নি;খোঁ;জ র;হ;স্য উ;দঘাটনে তিন প্রশ্নের উত্তর খুঁছে পুলিশ। এগুলো হলো-গন্তব্যে পৌঁছানোর ১৮ মিনিটের পথ বাকি থাকতে স্ত্রীর ফোন কলের পর কী ঘটেছিল? কোনো পারিবারিক দ্বন্দ্বের কারণে গা-ঢাকা দিয়েছেন কি না?

না তার প্রতিপক্ষ ইসলামিক দলের কেউ তাকে অ;পহ;র;ণ করেছে কি না? সরকারের আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কোনো ইউনিট তাকে তুলে নিয়ে গেছে-এই বিষয়টি মানতে নারাজ রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা। আদনানের মা আজেদা বেগম জানিয়েছেন, নিখোঁজ হওয়ার দু’দিন আগে থেকেই ত্ব-হা বলে আসছিল, তাকে দু’জন লোক কিছুদিন ধরে অনুসরণ করছে। বিষয়টি নিয়ে সে উদ্বিগ্ন।

তবে তারা কে বা কোনো ক্ষতি করতে পারে-সে বিষয়ে কিছু জানায়নি। ঢাকায় গেলে সে নি;রাপ;দে থাকতে পারে বলে আশা করেছিল। তিনি আরও জানান, ঢাকায় যাবার সময় হঠাৎ তাকে বুকে জড়িয়ে খুব কাঁ;দছিল। নামাজে সেজদায় পড়ে তার নি;রাপ;ত্তা ও নি;রাপ;দে ফিরে আসার জন্য আল্লাহর কাছে দোয়াও করতে বলেছিল। কিন্তু ওই রাত থেকেই সে তিন অনুসারীসহ নিখোঁজ। আজেদা বেগম জানান, আমার ছেলের একটি মোবাইল নম্বর দীর্ঘদিন থেকে বন্ধ ছিল।

হঠাৎ শুক্রবার (১১ জুন) বিকালে সেই ফোন নম্বর থেকে কল আসে। আমার সঙ্গে মেহেদী হাসান পরিচয়ে এক ব্যক্তি কথা বলে। এরপর তারা একটি ইমো আইডি খুলতে বললে আমার মেয়ে সেই আইডি খোলে। এর শনিবার আবার সেই ফোন নম্বর থেকে কল আসে। এরপর আমার ছেলে এবং তার তিন সঙ্গী ভালো আছে বলে জানায়। কিন্তু আমি জানতে চাই, সে কোথায় আছে এবং আমার ছেলেকে ফোন দাও আমি কথা বলব। তখন তারা টাকা চায়।

তখন আমরা ইমো আইডিটি বন্ধ করে দেই। আমার প্রশ্ন, আমার ছেলের বন্ধ নম্বর তারা পেল কী করে? আসলে তারা কারা? আমাদের পরিচিত কেউ কি না? মেহেদি হাসানের পরিচয় জানাতে পারেনি কেউ। পুলিশও তা অনুসন্ধান করছে। পুলিশের কাছে তথ্য রয়েছে আদনান আহলে হাদিস মতাদর্শের অনুসারী, তার নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল ও অনলাইনে ইসলাম ধর্ম নিয়ে দেওয়া বিভিন্ন বক্তব্য নিয়ে নানা বিতর্ক ছিল।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম-অপস্) আবু মারুফ হোসেন জানান, পুলিশের তদন্ত দল তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে জেনেছে ঢাকায় পৌঁছানোর পর ত্ব-হা যখন মিরপুরে অবস্থান করছিল তখন রাত ২টা ৩৭ মিনিট। সর্বশেষ কথা হয়েছিল তার স্ত্রী সাবিকুন নাহার সারার সঙ্গে। এদিকে ত্বহা আদনানের পরিবার ও তাঁর আইটি সাপোর্টার টিমের সাথে যোগাযোগ করে ইমেইল ও অন্যন্য ইলেকট্রনিক নাম্বার সংগ্রহ করে ট্র্যাক করে সাইফুর সাগরের ফেস দ্যা পিপল টিম। তাদের দাবি আদনানের সর্বশেষ মোবাইল লোকেশন বাংলাদেশের সর্বোচ্চ গোয়েন্দা সংস্থা ডিজিএফআই এর প্রধান অফিসের লোকেশন দেখানো হয়েছে।

পাঠকের উদ্দ্যেশ্যে ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবুহু তুলে ধরা হলো; আমাদের সাথে ত্বহা আদনানের পরিবার ও তাঁর আইটি সাপোর্টার টিমের সাথে যোগাযোগ হয় । তাঁদের কাছে আদনানের জিমেইল ও অন্যান্য ইলেক্ট্রনিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর প্রবেশ গোপন নাম্বার থাকার বদৌলতে ফোন ট্রেকার দিয়ে সব শেষ লোকেশন ট্র্যাক করতে সমর্থ হয় । সেই মোতাবেক আদনানের সর্বশেষ মোবাইল লোকেশন বাংলাদেশের সর্বোচ্চ গোয়েন্দা সংস্থা ডিজিএফআই এর প্রধান অফিসের লোকেশন দেখানো হয়েছে ।

সেসব ট্রেকিং স্ক্রিনশট আমাদের কাছে রক্ষিত আছে এবং আইটি এক্সপার্টদের সাথে গত দুইদিন যাবৎ বারংবার কথা বলে নিশ্চিত হয়েছি । সরকার ও গোয়েন্দা সংস্থাদের সাহায্যার্থে স্ক্রিনশটটি আমরা সবার কাছে এখানে শেয়ার করলাম । অধিকতর নিশ্চিত হবার জন্য গোয়েন্দা সংস্থাদের সহযোগিতা কামনা করেছে আদনানের পরিবার । আগামীকাল আইটি এক্সপার্ট সদস্যগণও আমাদের সাথে শোতে উপস্থিত থাকবেন । দেখার অনুরোধ রইলো ।

About mk tr

Check Also

এবার নিখোঁজ হয়েছেন মাওলানা মাহমুদুল হাসান গুনবী

  নোয়াখালী থেকে নিখোঁজ আল্লামা মুফতি মাহমুদুল হাসান গুনবীর সন্ধান চেয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে সাংবাদিক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *